আস্ক টু আন্স প্লাটফর্মে আপনাকে স্বাগতম, সমস্যার সমাধান খুঁজতে প্রশ্ন করুন।।
0 টি ভোট
72 বার প্রদর্শিত
"ইসলাম শিক্ষা" বিভাগে করেছেন (525 পয়েন্ট)

জামিউল কুরআন কাকে বলা হয়?

"লজ্জা ইমানের অংশ"- কেনো?

1 উত্তর

0 টি ভোট
করেছেন (525 পয়েন্ট)

উদ্দীপকঃ-

=> মুঘল সম্রাট নুরুদ্দীন জাহাঙ্গীরের আত্মচরিত 'তুযুক-ই- জাহাঙ্গীর' বা জাহাঙ্গীর নামা গ্রন্থটি বিভিন্ন পাণ্ডুলিপি তার মৃত্যুর পর বিভিন্ন জায়গায় পাওয়া যায়। ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা এসব পাণ্ডুলিপির মধ্যে অনেক জাল কপিও ছিল। সত্যিকারের গ্রন্থটি সম্পর্কে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হতে পারে বোঝাতে পেরে সৈয়দ আহমদ খান মূল পাণ্ডুলিপিগুলি সন্নিবেশিত করে আলীগড় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রকাশ করেন। এটি সঠিক বিবেচিত হলে জাল কপিগুলো নষ্ট করে ফেলা হয়।


প্রশ্ন-

ক. জামিউল কুরআন কাকে বলা হয়?

খ. "লজ্জা ইমানের অংশ"- কেনো?

গ. উদ্দীপকের ঘটনার সাথে কুরআন সংশ্লিষ্ট কোন ঘটনার মিল পাওয়া যায়? ব্যাখ্যা করো।

ঘ. উদ্দীপকের ঘটনার থেকে পূর্বের ঘটনাটি ছিল অধিক গুরুত্বপূর্ণ ও সতর্কতামূলক- তুমি কি একমত? মতের পক্ষে যুক্তি দেখাও।


 প্রশ্নের উত্তরঃ-

ক) হযরত উসমান (রা) কে জামিউল কুরআন বলা হয়।


খ) লজ্জাশীলতা ইমানের পরিচায়ক।পূত-পবিত্রতা ও শালীনতার অন্যতম বিষয় হলো লজ্জাশীলতা। লজ্জাশীলতা মানুষকে শালীন হতে সাহায্য করে। লজ্জাশীলতার মাধ্যমেই ইমানের বহিঃপ্রকাশ ঘটে। ফলে এর মাধ্যমে মানুষ পরকালীন সফলতা লাভ করতে পারে। এজন্যই রাসুল (স) বলেছেন- “লজ্জাশীলতার পুরোটাই কল্যাণময়” (মুসলিম)।


গ) উদ্দীপকে বর্ণিত কর্মকাণ্ডের সাথে আল কুরআন সংকলন সংক্রান্ত ঘটনার মিল রয়েছে।

রাসুল (স)-এর জীবদ্দশায় কুরআনের কোনো গ্রন্থাবন্ধ রূপ ছিল না।। কাতিবে ওহি (কুরআন লিপিবদ্ধকারী) নিয়োগ করে তিনি কুরআন সংকলন সম্পন্ন করেন। কিন্তু তাঁর মৃত্যুর (৬৩২ খ্রি.) পর এক সংকটজনক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। তাই পরিস্থিতি উত্তরণে কুরআন সংকলনের উদ্যোগ নেওয়া হয়, যে ধরনের পরিস্থিতি উদ্দীপকেও লক্ষণীয়।উদ্দীপকে দেখা যায়, সম্রাট জাহাঙ্গীরের মৃত্যুর পর তার লিখিত আত্মচরিত 'তুযুক-ই-জাহাঙ্গীর' নামক গ্রন্থটির নানা জাল কপি পাওয়া যায়। তাই সত্যিকারের গ্রন্থটি সংরক্ষণের জন্য স্যার সৈয়দ আহমদ খান মূল পাণ্ডুলিপিগুলো সন্নিবেশিত করে একটি গ্রন্থ প্রকাশ করেন, যা সঠিক বলে বিবেচিত হয়। আল কুরআন সংরক্ষণের ক্ষেত্রেও হযরত আবু বকর (রা) ওহি লেখক হযরত যায়েদ বিন সাবিত (রা)-এর নেতৃত্বে কুরআন সংকলনের উদ্যোগ নেন। তিনি কুরআনের বিভিন্ন পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করে এবং কুরআন মুখস্তকারীদের স্মৃতিতে রক্ষিত আয়াতের সাথে তুলনা করে কুরআনের আয়াতগুলো লিখে রাখার ব্যবস্থা করেন। এরপর হযরত উসমান (রা)-এর সময় কুরআনের পঠনরীতি নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হলে তিনি যায়েদ বিন সাবিত (রা)-এর নেতৃত্বে কুরআনের মূল পাণ্ডুলিপি সংগ্রহ করে বিভিন্ন অঞ্চলে এর সাতটি কপি পাঠিয়ে দেন। এভাবে কুরআন সংকলন করা হয়, যার সাথে উদ্দীপকের ঘটনা কিছুটা সাদৃশ্যপূর্ণ।


ঘ) উদ্দীপকে বর্ণিত গ্রন্থটি সংকলনের চেয়ে আল কুরআন সংকলনের ঘটনা ছিল অধিক কৌশলপূর্ণ এবং সতর্কতামূলক-এ বক্তব্যটি আমি সমর্থন করি।

আল কুরআন মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে রাসুল (স)-এর ওপর নাজিলকৃত সর্বশ্রেষ্ঠ ও সর্বশেষ আসমানি কিতাব। বিশেষ কৌশল ও সতর্কতা অবলম্বনের মাধ্যমে দুটি ভিন্ন পরিস্থিতিতে আল কুরআন সংকলনের কাজ সম্পন্ন হয়। উদ্দীপকের গ্রন্থটি সংকলনের ক্ষেত্রে আমরা এ বিশেষ পদ্ধতির আংশিক প্রতিফলন লক্ষ করি। উদ্দীপকে দেখা যায়, "তুযুক-ই-জাহাঙ্গীর" নামক গ্রন্থটি সংকলনের ক্ষেত্রে স্যার সৈয়দ আহমদ খান বিশেষ কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। তিনি তার ব্যক্তিগত উদ্যোগে এর বিক্ষিপ্ত পান্ডুলিপিগুলো সংগ্রহ করে গ্রন্থাবদ্ধ রূপ দান করেন। কিন্তু আল কুরআন সংকলনে হযরত আবু বকর (রা) বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। দায়িত্বপ্রাপ্ত হযরত যায়েদ বিন সাবিত (রা) চারটি বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করে কুরআনের ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা পাণ্ডুলিপিগুলোর নির্ভুলতা যাচাই করেন। তিনি পান্ডুলিপির সাথে সাহাবাদের স্মৃতিতে রক্ষিত কুরআনের আয়াতের তুলনা করেন এবং প্রতিটি আয়াতের অবিকৃতি নিশ্চিত করে তা লিপিবদ্ধ করেন। চূড়ান্ত পর্যায়ে লিখিত আয়াতগুলো অন্যান্য সাহাবাদের লিখিত পাণ্ডুলিপির সাথে সুষ্ঠুভাবে যাচাই করে মূল পাণ্ডুলিপির অন্তর্ভুক্ত করেন। এভাবে বিশেষ প্রক্রিয়ায় মহাগ্রন্থ আল কুরআন সংকলিত হয়।

উপরের আলোচনায় এটা প্রমাণিত যে, আল কুরআন সংকলনে যে বিশেষ সতর্কতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়, উদ্দীপকের ঘটনা সে তুলনায় খুবই সামান্য।

299 টি প্রশ্ন

296 টি উত্তর

1 মন্তব্য

1.7k জন সদস্য

1 জন অনলাইনে আছেন
0 জন সদস্য 1 জন অতিথি
আজ ভিজিট : 831 বার
গতকাল ভিজিট : 2327 বার
সর্বমোট ভিজিট : 307176 বার

Ask2Ans এ আপনাকে সুস্বাগতম, এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং Ask2An অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পাবেন। এখান থেকে যেমন আপনি জ্ঞান অর্জন করতে পারবেন তেমনিই এটি ব্যবহার করে আপনার জ্ঞান দিয়ে অপরকে সহায়তা করতে পারবেন। জ্ঞানার্জনের অন্যতম বাংলা প্লাটফর্ম হলো Ask2Ans, আমাদের সাথে থাকুন জ্ঞানঅর্জন করুন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
1 উত্তর 68 বার প্রদর্শিত
16 ডিসেম্বর 2023 "ইসলাম শিক্ষা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Admin (525 পয়েন্ট)
0 টি ভোট
1 উত্তর 110 বার প্রদর্শিত
0 টি ভোট
1 উত্তর 71 বার প্রদর্শিত
17 ডিসেম্বর 2023 "ইসলাম শিক্ষা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Admin (525 পয়েন্ট)
0 টি ভোট
1 উত্তর 53 বার প্রদর্শিত
25 ডিসেম্বর 2023 "বাংলা সাহিত্য" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Admin (525 পয়েন্ট)
0 টি ভোট
1 উত্তর 78 বার প্রদর্শিত
...